আপনিও হতে পারেন সহকারী উপজেলা শিক্ষা অফিসার

সহকারী উপজেলা/ থানা শিক্ষা অফিসার পদে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে বাংলাদেশ সরকারি কর্মকমিশন। নেওয়া হবে ১৪৪ জন। আবেদনের শেষ সময় ২৮ জুলাই সন্ধ্যা ৬টা।
34961_171
আবেদনের যোগ্যতাথাকতে হবে দ্বিতীয় শ্রেণির স্নাতকসহ দ্বিতীয় শ্রেণির মাস্টার্স অথবা চার বছরমেয়াদি দ্বিতীয় শ্রেণির স্নাতক (সম্মান) ডিগ্রি। ১ জুন ২০১৫ তারিখে বয়স হতে হবে ১৮ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে। মুক্তিযোদ্ধা/শহীদ মুক্তিযোদ্ধার সন্তানদের ক্ষেত্রে বয়সসীমা ৩২ বছর। বিভাগীয় প্রার্থীদের (সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক) বয়স ৪৫ বছর পর্যন্ত শিথিলযোগ্য।

প্রিলিমিনারি পরীক্ষার মানবণ্টন

নেওয়া হবে ১০০ নম্বরের প্রিলিমিনারি পরীক্ষা। এমসিকিউ টাইপের প্রশ্নও থাকবে ১০০টি। এর মধ্যে বাংলা ২৫, ইংরেজি ২৫, সাধারণ জ্ঞান (বাংলাদেশ ও আন্তর্জাতিক) ২৫ এবং গণিতে ২৫ নম্বর। প্রতি প্রশ্নের মান ১, তবে প্রতিটি ভুল উত্তরে কাটা যাবে .৫০ নম্বর।

বাংলা

ঝালকাঠির কাঁঠালিয়া উপজেলার সহকারী উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মো. সোলায়মান জানান, বাংলা ব্যাকরণ অংশে ভুল সংশোধন বা শুদ্ধকরণ, সমার্থক-বিপরীতার্থক শব্দ, সন্ধি, প্রত্যয়, সমাস, ধ্বনি, বাক্য, বাগধারা, বর্ণ, শব্দ, শব্দার্থ ও বাক্য সংকোচন থেকে প্রশ্ন আসে। সাহিত্য অংশে প্রাচীন যুগ, মধ্যযুগ ও আধুনিক যুগের কবি-সাহিত্যিকদের সাহিত্যকর্ম ও জীবনী থেকে প্রশ্ন আসে। ব্যাকরণ অংশের জন্য ড. সৌমিত্র শেখরের বাংলা ভাষা ও সাহিত্য জিজ্ঞাসা, নবম-দশম শ্রেণির বাংলা ব্যাকরণ, আর সাহিত্যের জন্য হুমায়ুন আজাদের লাল নীল দীপাবলি সহায়ক হবে।

ইংরেজি

নেত্রকোনা সদরের সহকারী উপজেলা শিক্ষা অফিসার তারিক সালাহউদ্দিন জানান, Parts of speech, Right forms of verb, Appropriate word, Preposition, Transformation of sentences, Narration, Voice Change, Chose the correct Sentence, Synonyms, Antonyms, Phrases and Idioms, Translation থেকে প্রশ্ন আসে। এ অংশে ভালো করতে হলে গ্রামারে দখল থাকতে হবে। Literature-এর ক্ষেত্রে বিভিন্ন সময়কাল, বিখ্যাত লেখকদের উক্তি, কবিতার লাইন পড়তে হবে।

গাণিতিক যুক্তি

বাগেরহাটের রামপাল উপজেলার সহকারী উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মো. মামুন হোসেন জানান, পাটিগণিতে ঐকিক নিয়ম, ল.সা.গু, গ.সা.গু, শতকরা, লাভ-ক্ষতি, সুদকষা, অনুপাত-সমানুপাত, বীজগণিতে উৎপাদক নির্ণয়, মান নির্ণয়, সমীকরণ, অসমতা, সূচক ও লগারিদমের সূত্রের প্রয়োগ, জ্যামিতিতে রেখা, কোণ, বৃত্ত, ত্রিভুজ, চতুর্ভুজসংক্রান্ত উপপাদ্য, পরিমিতি থেকে প্রশ্ন আসে। অষ্টম থেকে দশম শ্রেণির গণিত বোর্ড বইয়ের অঙ্ক সমাধান করলে কাজে দেবে।

সাধারণ জ্ঞান

মো. সোলায়মান জানান, বাংলাদেশ বিষয়াবলিতে মুক্তিযুদ্ধ, সংবিধান, জাতীয় সংসদ, ভৌগোলিক অবস্থা, ইতিহাস, ঐতিহ্য, কৃষ্টি ও সভ্যতা, শিল্প ও বাণিজ্য, কৃষি, সরকার ও রাজনৈতিক ব্যবস্থা, অর্থনীতি, অর্থনৈতিক সমীক্ষা, প্রাকৃতিক সম্পদ, খেলাধুলা, গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা, বিখ্যাত ব্যক্তি, প্রতিষ্ঠান, সাম্প্রতিক ঘটনাবলি থেকে প্রশ্ন থাকে।

আন্তর্জাতিক বিষয়াবলিতে আন্তর্জাতিক সংস্থা ও জোট, বিশ্ব রাজনীতি, বিশ্বযুদ্ধ, গোয়েন্দা সংস্থা, লাইন-সীমারেখা, প্রণালি, দেশ, মুদ্রা, রাজধানী, পার্লামেন্ট, দিবস, সম্মেলন, পুরস্কার, খেলাধুলা ও সাম্প্রতিক ঘটনাপ্রবাহ থেকে প্রশ্ন আসে। সাধারণ জ্ঞান অংশে দৈনন্দিন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি থেকে কিছু প্রশ্ন থাকে। বাংলাদেশ বিষয়াবলির জন্য মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিকের ইতিহাস ও সামাজিক বিজ্ঞান বই সহায়ক। আন্তর্জাতিক বিষয়াবলির জন্য বাজারে প্রচলিত সাধারণ জ্ঞান ও গাইড বই পড়তে হবে। সাম্প্রতিক ঘটনাবলির জন্য পড়তে হবে দৈনিক পত্রিকা।

লিখিত ও অন্যান্য পরীক্ষা

লিখিত পরীক্ষায় থাকবে ২০০ নম্বর। বাংলায় ৫০, ইংরেজিতে ৫০, গণিত ও মানসিক দক্ষতা ৬০ এবং সাধারণ জ্ঞানে থাকবে ৪০ নম্বর। গড় পাস নম্বর ৪৫। লিখিত পরীক্ষায় পাস করলে ডাকা হবে মৌখিক পরীক্ষায়। এতে বরাদ্দ থাকবে ৫০ নম্বর।

বাংলা

কাঁঠালিয়া উপজেলার সহকারী উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মো. সোলায়মান জানান, লিখিত পরীক্ষায় বাংলা রচনায় থাকে ১৫ নম্বর। সাধারণত চারটি বা তিনটি থেকে একটির উত্তর করতে হয়। সামাজিক সমস্যা ও এর প্রতিকার, ভাষা আন্দোলন, মুক্তিযুদ্ধ, তথ্যপ্রযুক্তি, জাতীয় উন্নয়ন, নারী বিষয়ে রচনা বেশি আসে। সারমর্ম বা সারাংশে থাকে ৫ নম্বর। চিঠি বা আবেদনপত্রে থাকে ১০ নম্বর। এ অংশে কখনো সংবাদপত্রে প্রকাশের জন্য পত্র, কখনো নিয়োগের আবেদনপত্র, কখনো কোনো ঘটনার বিবরণ জানিয়ে বন্ধুর কাছে পত্র লিখতে বলা হয়। বঙ্গানুবাদে থাকে ৫ নম্বর। সাধারণত সামাজিক সমস্যা, ঘটনা, উপদেশসংক্রান্ত বিষয় বাংলায় অনুবাদ করতে হয়। বাকি ১৫ নম্বর বরাদ্দ থাকে ব্যাকরণে। শব্দ, ভাষা ও বানানরীতি, সমার্থক ও বিপরীত শব্দ, প্রকৃতি ও প্রত্যয়, সন্ধি, উপসর্গ, অনুসর্গ, এককথায় প্রকাশ, বাগধারা থেকে প্রশ্ন থাকে।

ইংরেজি

মো. শাহীন হোসেন জানান, লিখিত পরীক্ষায় Essay writing-এ বরাদ্দ থাকে ১৫ নম্বর। হিন্টস দেওয়া থাকে। বাংলাদেশের প্রাকৃতিক সম্পদ, প্রাকৃতিক বিপর্যয়, সামাজিক সমস্যা, মিডিয়া, ভাষা আন্দোলন, মুক্তিযুদ্ধ, শিক্ষা, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিবিষয়ক Essay বেশি আসে। Letter/Application Writing-এ ১০ নম্বর। এ অংশ বাংলার মতোই, কেবল লিখতে হয় ইংরেজিতে। Passage-এ থাকে ১০ নম্বর। Passage-এর আলোকে পাঁচটি প্রশ্নের উত্তর দিতে হয়। Grammar অংশ থেকে থাকে ১৫ নম্বর। এ Appropriate preposition, Phrases and Idioms, Translation, Correct Sentence, Fill in the Blanks, Make Sentence, One word substitutions থেকে প্রশ্ন হয়ে থাকে।

গণিত ও মানসিক দক্ষতা

নেত্রকোনার মোহনগঞ্জ উপজেলার সহকারী উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা আনারকলি নাজনীন জানান, লিখিত পরীক্ষায় পাটিগণিতে থাকে ৩০ নম্বর। সাধারণত ঐকিক নিয়ম, ল.সা.গু, গ.সা.গু, শতকরা, লাভ-ক্ষতি, সুদকষা, অনুপাত-সমানুপাত থেকে প্রশ্ন হয়ে থাকে। বীজগণিতে থাকে ২০ নম্বর। উৎপাদক নির্ণয়, মান নির্ণয়, সমীকরণ, সূচক ও লগারিদমের সূত্রের প্রয়োগ থেকে বেশি প্রশ্ন হয়ে থাকে। জ্যামিতিতে থাকে ১০ নম্বর। জ্যামিতিতে রেখা, কোণ, বৃত্ত, ত্রিভুজ, চতর্ভুজসংক্রান্ত উপপাদ্য, পরিমিতি (সরল ও ঘনবস্তু) থেকে প্রশ্ন থাকে।

সাধারণ জ্ঞান

তারিক সালাহউদ্দিন জানান, লিখিত পরীক্ষায় বাংলাদেশ বিষয়াবলিতে থাকে ১৫ নম্বর। ভাষা আন্দোলন, মুক্তিযুদ্ধ, সংবিধান, সংবিধান সংশোধন, ভৌগোলিক অবস্থান, নদ-নদী, পাহাড়-পর্বত, দ্বীপ, নদীবন্দর, সমুদ্রবন্দর, স্থলবন্দর, বিমানবন্দর, আলোচিত ঘটনা, উল্লেখযোগ্য চুক্তি, গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা, জাতীয় বিষয়াবলি থেকে প্রশ্ন হয়ে থাকে। আন্তর্জাতিক বিষয়াবলিতে ১৫ নম্বর। জাতিসংঘ, বিভিন্ন দেশের প্রেসিডেন্ট, প্রধানমন্ত্রী, আন্তর্জাতিক সংস্থা, বিশ্ব রাজনীতি, পর্বতশৃঙ্গ, আলোচিত ও বিতর্কিত দ্বীপ, বিভিন্ন দেশের মুদ্রা, রাজধানী, পার্লামেন্ট, আন্তর্জাতিক সম্মেলন, দিবস থেকে বেশি প্রশ্ন থাকে। দৈনন্দিন বিজ্ঞান থেকে ১০ নম্বরের প্রশ্ন থাকে। পদার্থের অবস্থা, গ্যাস, এসিড, ক্ষার, লবণ, শব্দ ও তরঙ্গ, শক্তির উৎস, রূপান্তর, তড়িৎ কোষ, এক্স-রে, তেজস্ক্রিয়তা, ভাইরাস, ব্যাকটেরিয়া, খাদ্য ও পুষ্টি, কম্পিউটার ও তথ্যপ্রযুক্তি থেকে প্রশ্ন থাকে।

আবেদনের নিয়ম

আবেদন করতে হবে ওয়েবসাইটের (bpsc.teletalk.com.bd এবং www.bpsc.gov.bd) মাধ্যমে। আবেদন করা যাবে ২৮ জুলাই সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত। বাংলাদেশ সরকারি কর্মকমিশনের (পিএসসি) পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক (নন ক্যাডার) শেখ শাখাওয়াৎ হোসেন জানান, শেষ তারিখের জন্য অপেক্ষা না করে আগেভাগে আবেদন করাই ভালো। প্রথমে বিপিএসসি-৫ ফরমের প্রথম অংশে প্রয়োজনীয় তথ্যের ঘর যথাযথভাবে পূরণ করতে হবে।  দ্বিতীয় অংশে প্রার্থীর ৩০০ বাই ৩০০ পিক্সেল ও সর্বোচ্চ ১০০ কিলোবাইট আকারের রঙিন ছবি এবং ৩০০ বাই ৮০ পিক্সেল ও সর্বোচ্চ ৬০ কিলোবাইট আকারের স্ক্যান করা স্বাক্ষর আপলোড করতে হবে। ফরম পূরণ শেষে Application Preview-তে সব তথ্য ঠিক আছে কি না যাচাই করে Validation Code দিয়ে আবেদন সাবমিট করতে হবে। Applicant’s Copy ডাউনলোড বা প্রিন্ট করে সংরক্ষণ করতে হবে এবং প্রাপ্ত User ID ব্যবহার করে টেলিটকের মাধ্যমে ৫০০ টাকা পরীক্ষার ফি জমা দিতে হবে। এর জন্য প্রথমে BPSC<space>User ID লিখে পাঠাতে হবে ১৬২২২ নম্বরে। ফিরতি এসএমএসে প্রাপ্ত পিন নম্বরসহ BPSC<space>yes<space>pin লিখে আবার ১৬২২২ নম্বরে দ্বিতীয় এসএমএস পাঠাতে হবে। পরীক্ষার ফির সমপরিমাণ টাকা কেটে ফিরতি এসএমএসে ইউজার আইডি ও পাসওয়ার্ড জানিয়ে দেওয়া হবে। এটি প্রবেশপত্র ডাউনলোডসহ বিভিন্ন কাজে প্রয়োজন হবে। বিজ্ঞপ্তি পাওয়া যাবে নিচের লিংকে- www.bpsc.gov.bd/upload/docs/nce_advertise_0701101112.pdf

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on pinterest
Share on whatsapp
Share on telegram
Share on pocket

এরকম আরও নিউজ