৫০৯০ জন বেকার পাবে ফ্রী প্রশিক্ষণ সাথে ভাতা ও চাকরির সুযোগ

চামড়াশিল্পে প্রশিক্ষণ পাবে ৫০৯০ জন বেকার ও কর্মী। অর্থায়ন করছে সরকারের অর্থ মন্ত্রণালয়ের স্কিলস ফর এমপ্লয়মেন্ট ইনভেস্টমেন্ট প্রোগ্রাম (এসইআইপি) এবং এশিয়ান ডেভেলপমেন্ট ব্যাংক (এডিবি)। সারা দেশে প্রশিক্ষণ কর্মসূচি বাস্তবায়ন করছে লেদার গুডস অ্যান্ড ফুটওয়্যার ম্যানুফেকচারার্স অ্যান্ড এক্সপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (এলএফএমইএবি)।

কেন এই প্রশিক্ষণ
প্রকল্পের সমন্বয়কারী আরিফুর রহমান ভূইয়া বলেন, ‘চামড়াজাত পণ্যের রয়েছে বিশাল বাজার। আমাদের তৈরি পণ্য রপ্তানি হচ্ছে বিভিন্ন দেশে। আর এ শিল্পকে ঘিরে রয়েছে কর্মসংস্থানের অনেক সুযোগ। নতুন যারা এ শিল্পে কর্মী বা অপারেটর লেভেলে কাজ করতে চায়, এমন ৪০২০ জনকে আমরা প্রশিক্ষণ দেব। মধ্যম স্তরের কর্মী হিসেবে বিভিন্ন কারখানায় কাজ করছে এমন ১০৭০ জনও প্রশিক্ষণ পাবে। এ বছর প্রকল্পটি শুরু হয়েছে। চলবে ২০১৭ সাল পর্যন্ত।’

প্রশিক্ষণের বিষয়
প্রকল্পের সহকারী সমন্বয়কারী (প্রশিক্ষণ) কমল ব্যানার্জি জানান, নতুনদের অর্থাৎ কর্মী লেভেলে তিনটি বিষয়ে প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে। বিষয় তিনটি হলো—কাটিং মেশিন অপারেটর, সুইং মেশিন অপারেটর এবং সেটিং অ্যান্ড অ্যাসেমিব্লং অপারেটর। সব কোর্সের মেয়াদ দুই মাস। বিভিন্ন কারখানায় মধ্যম স্তরের কর্মী হিসেবে নিয়োজিতদের কর্মী ব্যবস্থাপনা, উৎপাদন ব্যবস্থাপনা, সাপ্লাই চেইন ম্যানেজমেন্ট, কমপ্লায়েন্স, এইচআর ইত্যাদি বিষয়ে দক্ষতা বৃদ্ধির জন্য প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে।

আবেদনের যোগ্যতা
১৮ বছর বা তার বেশি বয়সী বাংলাদেশি নাগরিকরা আবেদন করতে পারবেন। ন্যূনতম শিক্ষাগত যোগ্যতা অষ্টম শ্রেণি পাস। অগ্রাধিকার পাবেন নারী, উপজাতি ও ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর প্রার্থীরা। ভর্তির সময় জমা দিতে হবে শিক্ষাগত যোগ্যতার সনদ বা নম্বরপত্রের ফটোকপি, জাতীয় পরিচয়পত্র অথবা জন্মনিবন্ধনের ফটোকপি ও দুই কপি পাসপোর্ট আকারের ছবি।

আবেদন ও বাছাই প্রক্রিয়া
কমল ব্যানার্জি জানান, নির্ধারিত ফরমে আবেদন করতে হবে। ভর্তি ফরম পাওয়া যাবে www.lfmeab.org ও www.coelbd.com । ফরম সংগ্রহ করা যাবে প্রকল্পের অফিস থেকেও। ফরম পূরণ করে জমা দিতে হবে প্রকল্পের গাজীপুরের চন্দ্রা অফিসে।
প্রার্থী বাছাইয়ের সময় শিক্ষাগত যোগ্যতা ও দক্ষতা, কারখানায় কাজ করার মানসিকতা, শারীরিক যোগ্যতা, কাজ শেখার আগ্রহ, সাধারণ জ্ঞানের পরিধি ইত্যাদি বিষয় বিবেচনায় নেওয়া হবে।
কাটিং মেশিন অপারেটর পদে প্রতি ব্যাচে ১৫ জন করে এবং সুইং মেশিন অপারেটর ও সেটিং অ্যান্ড অ্যাসেমিব্লং অপারেটর পদে প্রতি ব্যাচে নেওয়া হবে ৩০ জন করে। ভর্তির জন্য যোগাযোগ করতে হবে প্রতি মাসের প্রথম সপ্তাহে।

মিলবে ভাতা ও চাকরি
আরিফুর রহমান ভূইয়া জানান, প্রশিক্ষণের জন্য কোনো ফি গুনতে হবে না। বরং প্রশিক্ষণ চলাকালে প্রতি মাসে দেওয়া হবে ৩২৫০ টাকা হারে ভাতা। এ ছাড়া কারখানা থেকে দেওয়া হবে ১০০০ থেকে ১৫০০ টাকা। প্রশিক্ষণ শেষে কাজের মূল্যায়ন করে দেওয়া হবে প্রশিক্ষণ সনদ। ভালো করতে পারলেই মিলবে চাকরি। কমল ব্যানার্জি জানান, চামড়াশিল্পে দক্ষ শ্রমিকের প্রচুর চাহিদা রয়েছে। প্রশিক্ষণ শেষে দক্ষরা বিভিন্ন চামড়াজাত পণ্যের কারখানায় ভালো বেতনে চাকরি পাবে। প্রশিক্ষণ নেওয়া কর্মীর তথ্য অন্তর্ভুক্ত করা হবে জাতীয় দক্ষতা ডাটাবেজে।

হাতে-কলমে প্রশিক্ষণ
প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে লেদার গুডস অ্যান্ড ফুটওয়্যার ম্যানুফেকচারার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (এলএফএমইএবি) সদস্য কারখানাগুলোতে। প্রশিক্ষণের মোট সময় দুই মাস বা ৩০০ ঘণ্টা। এর মধ্যে ৬০ ঘণ্টা তাত্ত্বিক। এতে চামড়াশিল্পের মৌলিক বিষয়ে ধারণা দেওয়া হবে। ২৪০ ঘণ্টার ব্যবহারিক প্রশিক্ষণে হাতে-কলমে কাজ শেখানো হবে। প্রকল্পের নিয়ম অনুসারে প্রশিক্ষণার্থীকে সপ্তাহে ছয় দিন ছয় ঘণ্টা করে কাজ করতে হবে। তবে কারখানাভেদে এ নিয়ম ভিন্ন হতে পারে।

ভর্তি তথ্য বিভিন্ন
সময় পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দিয়ে প্রার্থী খোঁজা হবে। তাই নিয়মিত চোখ রাখতে হবে পত্রিকায়। www.lfmeab.orgwww.coelbd.com ওয়েবসাইটেও পেতে পারেন দরকারি তথ্য। এ ছাড়া যেকোনো তথ্যের জন্য সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত যোগাযোগ করা যাবে দেওয়ান প্লাজা (তৃতীয় তলা), হোল্ডিং নং-ই-২০, ওয়ার্ড নং-৭, পল্লী বিদ্যুৎ, চন্দ্রা, কালিয়াকৈর, গাজীপুর ঠিকানায়। ০২-৬৮২২৫১৮৭৩, ০১৭৬৮৪২৩৩২২, ০১৬১৫২৪১০২০ নম্বরে যোগাযোগ করেও জানা যাবে তথ্য।

হোম পরীক্ষা চাকুরী উচ্চশিক্ষা