১৫০০ শিক্ষক নিয়োগের প্রক্রিয়া চলছে

গ্রামাঞ্চলের বেশির ভাগ স্কুল বা মাদ্রাসায় পর্যাপ্তসংখ্যক বিষয়ভিত্তিক শিক্ষক নেই। এমনকি বিষয় শিক্ষক থাকলেও তাঁরা যথাযথ প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত নন। এসব কারণে গ্রামাঞ্চলের ছেলেমেয়েরা পরীক্ষায় তেমন একটা ভালো ফল করতে পারে না। স্কুল ও মাদ্রাসাগুলোতে মানসম্মত শিক্ষার প্রসার, শিক্ষকস্বল্পতা ও ঝরে পড়া রোধ করে শিক্ষার্থীদের ধরে রাখার হার বাড়ানোর লক্ষ্যে বিশ্বব্যাংক ও বাংলাদেশ সরকারের যৌথ অর্থায়নে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অধীনে সেকেন্ডারি এডুকেশন কোয়ালিটি অ্যান্ড অ্যাকসেস এ্যানহেন্সমেন্ট (সেকায়েপ) প্রকল্পে ২০১৭ সালের মধ্যে সারা দেশের ৬৪টি জেলায় নির্ধারিত ৬৪টি উপজেলায় অবস্থিত ২ হাজার স্কুল ও মাদ্রাসায় মোট ৬ হাজার অতিরিক্ত শ্রেণি শিক্ষক (এসিটি) চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ করা হবে বলে সেকায়েপ সূত্রে জানা গেছে।

এই প্রকল্পের সহকারী পরিচালক মো. আসাদুজ্জামান খান মজলিশ বলেন, ‘প্রতিটি স্কুলে ৩ জন করে শিক্ষক নিয়োগ করা হবে। এ নিয়োগে চুক্তির মেয়াদ হবে ২০১৭ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত। তবে যদি এই প্রকল্প প্রোগ্রামে রূপান্তরিত হয়, তাহলে এসব শিক্ষকেরা স্থায়ীভাবে নিয়োগের সুযোগ পাবেন।’সেকায়েপ সূত্রে জানা গেছে, এই প্রকল্পে ইতিমধ্যে এর আগে কয়েকটি ধাপে ৪ হাজার ৫০০ জন এটিসি নিয়োগ করা হয়। এরই ধারাবাহিকতায় এই ধাপে ১ হাজার ৫০০ জন এসিটি নিয়োগ করা হবে।

ইংরেজি, গণিত ও বিজ্ঞান (পদার্থ, রসায়ন, জীব) এই তিনটি বিষয়ে শিক্ষক নেওয়া হবে। পুরুষ প্রার্থীর পাশাপাশি নারী প্রার্থীরাও আবেদন করতে পারবেন। এ ছাড়া বয়সের কোনো নির্দিষ্ট সীমা না থাকায় অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষকেরাও আবেদনের সুযোগ পাবেন। এ পদে আবেদনের জন্য শিক্ষাগত যোগ্যতা লাগবে কমপক্ষে সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ৩০০ নম্বর পেয়ে স্নাতক পাস। তবে স্নাতক (সম্মান ও পাস) পর্যায়ে ৫০ ভাগ বা সিজিপিএ ৪-এ ২.৫ পেয়ে পাস করতে হবে।

ইতিমধ্যে অনলাইনে আবেদন প্রক্রিয়া শুরু হয়ে গেছে। আবেদন করতে হবে ২১ জুলাইয়ের মধ্যে।

এ পদে আবেদন করতে হলে সেকায়েপের ওয়েবসাইট www.seqaep.gov.bd/jobs এই ঠিকানায় গিয়ে প্রয়োজনীয় তথ্য দিয়ে অনলাইনের মাধ্যমে আবেদন করতে হবে। অনলাইনে আবেদন পূরণ করার পর প্রার্থীকে অনলাইন আবেদনপত্রের কপিসহ প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সরাসরি বা ডাকযোগে ৩০ জুলাইয়ের মধ্যে প্রকল্প পরিচালক বরাবর পাঠাতে হবে।  আসাদুজ্জামান খান মজলিশ বলেন, প্রার্থীদের আবেদনপত্র যাচাই-বাছাই করে মেধা ও ফলাফলের ভিত্তিতে এ বছরের ডিসেম্বর মাসের মধ্যে শুধু নির্বাচিত প্রার্থীদের তালিকা সেকায়েপের ওয়েবসাইট ও নির্বাচিত প্রার্থীদের মুঠোফোনে খুদে বার্তার মাধ্যমে জানানো হবে। প্রার্থীদের কোনো বাছাই পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে হবে না।

আগামী জানুয়ারিতে তাঁদের নির্ধারিত উপজেলার স্কুল ও মাদ্রাসাগুলোতে চূড়ান্তভাবে নিয়োগ করা হবে। তবে প্রার্থী যে জেলার বাসিন্দা, তাঁকে সেই উপজেলার নির্ধারিত স্কুল বা মাদ্রাসায় কাজ করতে হবে।  চূড়ান্তভাবে নির্বাচিত প্রথম শ্রেণির স্নাতক পাস একজন অতিরিক্ত শ্রেণি শিক্ষক (এসিটি) সাকল্যে মাসিক ২৫ হাজার টাকা বেতন পাবেন। অন্যদিকে, দ্বিতীয় শ্রেণির স্নাতক পাস একজন এসিটি সাকল্যে ২২ হাজার টাকা বেতন পাবেন। এসিটি বিষয় শিক্ষক তাঁদের কর্মকালে প্রতিষ্ঠানের নিয়মিত শিক্ষক হিসেবে কাজ করবেন। প্রত্যেক অতিরিক্ত শ্রেণি শিক্ষককে মাসে নিয়মিত ক্লাস ছাড়াও ন্যূনতম ১৬টি অতিরিক্ত ক্লাস নিতে হবে। এই অতিরিক্ত ক্লাসের জন্য শিক্ষকেরা ৮ হাজার টাকা প্রণোদনা ভাতাসহ অন্যান্য ভাতা পাওয়া যাবে, যা বেতনের মধ্যে অন্তর্ভুক্ত আছে।  বিস্তারিত জানতে: এই নিয়োগ-সংক্রান্ত যেকোনো বিষয়ে জানতে যোগাযোগ করতে পারেন এই নম্বরে- ৯৫৫৫১৩৭। এ ছাড়া ভিজিট করতে পারেন www.seqaep.gov.bd এই ঠিকানায়।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on pinterest
Share on whatsapp
Share on telegram
Share on pocket

এরকম আরও নিউজ