বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন: প্রিলিমিনারি পাসের পর লিখিত পরীক্ষা

বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষা পদ্ধতিতে পরিবর্তন আনা হয়েছে। একসঙ্গে ২ পরীক্ষার পরিবর্তে এখন থেকে আলাদাভাবে প্রিলিমিনারিতে পাস করার পর পরীক্ষার্থীদের লিখিত পরীক্ষা দিতে হবে।

বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষ (এনটিআরসিএ) এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বুধবার এ তথ্য জানিয়েছে।
বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, আগে স্কুল এবং কলেজ পর্যায়ে দুটি পরীক্ষা একসঙ্গে ৪ ঘণ্টা ধরে (এমসিকিউ পদ্ধতিতে আবশ্যিক বিষয়ের পরীক্ষা ১ ঘণ্টা এবং বর্ণনামূলক পদ্ধতিতে বিষয়ভিত্তিক লিখিত পরীক্ষা ৩ ঘণ্টা) বিরতিহীনভাবে নেওয়া হতো। আগামী দ্বাদশ শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষার ক্ষেত্রে প্রার্থীদের অনলাইনে আবেদন করার পর প্রথম ধাপে ১ ঘণ্টার ১০০ নম্বরের প্রিলিমিনারি টেস্ট অনুষ্ঠিত হবে।
স্কুল পর্যায়ের প্রিলিমিনারি পরীক্ষা প্রথম দিনে এবং কলেজ পর্যায়ের প্রিলিমিনারি টেস্ট দ্বিতীয় দিনে অনুষ্ঠিত হবে। স্বল্প সময়ের মধ্যে প্রিলিমিনারি পরীক্ষার ফলাফল ঘোষণা করা হবে।
বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, এরপর প্রিলিমিনারি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ প্রার্থীরা দ্বিতীয় ধাপে অনলাইনে পূরণ করা আবেদনপত্রের প্রিন্ট কপির সঙ্গে শিক্ষাগত যোগ্যতার সনদপত্রসহ অন্যান্য কাগজপত্র পাঠাবেন। এ আবেদন যাচাই-বাছাইয়ের পর যোগ্য প্রার্থীদের লিখিত পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।
লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণ প্রার্থীদের নিবন্ধন সনদপত্র দেওয়া হবে।
প্রিলিমিনারি পরীক্ষা আগের মতো ২০টি জেলাভিত্তিক কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত হবে। তবে দ্বিতীয় ধাপের পরীক্ষা কেন্দ্র প্রয়োজনে কমানো হবে বলেও বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে।
বেসরকারি স্কুল ও কলেজে শিক্ষক হিসেবে নিয়োগ পেতে হলে এনটিআরসিএ’র সনদ বাধ্যতামূলক। পরীক্ষার মাধ্যমে এনটিআরসিএ এ সনদ দিয়ে থাকে। ইতোপূর্বে বেসরকারি স্কুল ও কলেজে শিক্ষক নিবন্ধনের ১১টি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে।
উল্লেখ্য, নিবন্ধন সনদের মেয়াদ আগে ৫ বছর থাকলেও কয়েক বছর আগে তা আজীবন করা হয়েছে।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on pinterest
Share on whatsapp
Share on telegram
Share on pocket

এরকম আরও নিউজ