বেরোবির লাইব্রেরিতে নেই ছয় বিভাগের বই

begum-rokeya-dd_28942

 

রংপুর বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে (বেরোবি) কেন্দ্রীয় লাইব্রেরিতে পাঠ্যপুস্তক বিহীন চলছে ছয়টি বিভাগ। বিশ্ববিদ্যালয়ে নতুন বিভাগ চালুর প্রায় তিন বছর হলেও ক্রয় করা হয়নি কোন পাঠ্যপুস্তক । ফলে নতুন এই বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শির্ক্ষাথীদের শিক্ষা র্কাযক্রম মারাত্মক হুমকির মুখে।

জাতীয় র্পযায়ে উচ্চ শিক্ষা, গবেষণা, আধুনিক জ্ঞানর্চচা ও পঠন পাঠনের সুযোগ সৃষ্টি ও সম্পসারণের উদ্দেশ্যে ২০০৮ সালে যে বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠিত, সেই বিশ্ববিদ্যালয়ের পাঠ্যপুস্তকের সংখ্যা হাতেগোনা।

লাইব্রেরিতে চালু নেই আর্ন্তজাতিক কোন র্জানাল। প্রায় ছয় হাজার শির্ক্ষাথীর জন্য দৈনিক পত্রিকা সংখ্যা মাত্র ১২ টি, যার মধ্যে রয়েছে দুইটি ইংরেজি ও দুইটি স্থানিয় পত্রিকা । প্রায়ই প্রয়োজনীয় পাঠ্যপুস্তক না পেয়ে উচ্চ মূল্যে বাহির থেকে পাঠ্যপুস্তক ক্রয় করে শিক্ষা র্কাযক্রম ও গবেষণার কাজ অব্যাহত রাখতে হচ্ছে শিক্ষক-শির্ক্ষাথীদের ।

বিশ্ববিদ্যালয়ের মেধা বিকাশের অন্যতম প্রাণকেন্দ্রের এই করুণ অবস্থা দেখে হতাশ শিক্ষক-শির্ক্ষাথীরা। অনেকের কাছেই এখন একটাই প্রশ্ন কিভাবে চলছে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা র্কাযক্রম।

লাইব্রেরি এন্ড ইনফরমেশন সেন্টার সূত্রে জানা যায়, বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন ২০১২-২০১৩ র্অথ বছরে পাঠ্যপুস্তক ক্রয়ের জন্য প্রায় ২৮ লক্ষ টাকা বরাদ্ধ দিয়েছিল । তার মধ্যে নতুন চালুকৃত ছয়টি বিভাগের ( গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা, ইলেকট্রনিক্স এন্ড টেলিকমিউনিকেশন ইঞ্জিনিয়ারিং, উইমেন এন্ড জেন্ডার স্টাডিজ, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা, ফাইন্যান্স এন্ড ব্যাংকিং, লোকপ্রশাসন) পাঠ্যপুস্তক অর্ন্তভুক্ত ছিল না।

পরর্বতীতে পাঠ্যপুস্তক ক্রয়ের জন্য কোন অর্থ বরাদ্ধ না থাকায়, লাইব্রেরিতে নতুন ছয়টি বিভাগসহ কোন বিভাগেরই পাঠ্যপুস্তক এখনো ক্রয় করা হয়নি ।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক উইমেন এন্ড জেন্ডার স্টাডিজ বিভাগের শির্ক্ষাথী বলেন, তিন বছর ধরে লাইব্রেরিতে আমাদের বিভাগের কোন পাঠ্যপুস্তক নেই । হয়ত বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন লাইব্রেরিতে পাঠ্যপুস্তকের প্রয়োজনিয়তা অনুভব করছে না।

ছয়টি বিভাগের পাঠ্যপুস্তক নেই নিশ্চত করে লাইব্রেরি এন্ড ইনফরমেশন সেন্টার এর সহকারী পরিচালক (গ্রন্থাকার) আব্দুস সামাদ বলেন, শির্ক্ষাথীদের চাহিদা পূরণে র্বতমানে যে পাঠ্যপুস্তক আছে তা যথেষ্ট নয়।

জানতে চাইলে লাইব্রেরি এন্ড ইনফরমেশন সেন্টার এর পরিচালক বলেন, নামমাত্র পরিচালক হিসেবে আছি। পাঠ্যপুস্তক ক্রয়ের কোন বরাদ্ধ নেই। পাঠ্যপুস্তক ক্রয়ের ব্যাপারে উপার্চায মহাদয় কে বিভিন্ন সময়ে একাধিক বার অবহিত করা হলেও কোন ব্যবস্থা গ্রহন করা হয়নি।

এ ব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপার্চায অধ্যাপক ড. এ কে এম নূর-উন-নবী বলেন, ‘লাইব্রেরিতে র্পযাপ্ত পাঠ্যপুস্তক না থাকলেও বিভাগ গুলোর সেমিনার র্পযাপ্ত পাঠ্যপুস্তক আছে।’

তবে গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষক তাবিউর রহমান প্রধান বলেন, তাঁদের লাইব্রেরিতে কোন পাঠ্যপুস্তক নেই, এমনকি বিভাগে রুম না থাকায় সেমিনারও চালু করা যাচ্ছে না।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on pinterest
Share on whatsapp
Share on telegram
Share on pocket

এরকম আরও নিউজ