বৃহৎ কর্মসূচির হুমকি জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষকদের

প্রস্তাবিত অষ্টম জাতীয় বেতন কাঠামোর বৈষম্য দূরীকরণপূর্বক পুনঃনির্ধারণ এবং শিক্ষকদের জন্য স্বতন্ত্র বেতন স্কেল ঘোষণাসহ চার দফা দাবিতে তৃতীয় দফায় কর্মবিরতি পালন করেছেন পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকেরা। আগামীকাল সোমবারের মধ্যে দাবি আদায় না হলে কঠোর কর্মসূচির দিকে যাবেন বলে হুশিয়ারি উচ্চারণ করেছেন তারা। আজ রোববার দেশের পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে সকাল ১০টা থেকে বেলা ১টা পর্যন্ত তিন ঘণ্টার কর্মবিরতি পালন করা হয়।

50313_154

বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি ফেডারেশন এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি উভয় সংগঠনের সভাপতি অধ্যাপক ড. ফরিদ উদ্দিন আহমেদ আজ সন্ধ্যায় নয়া দিগন্তকে বলেন, সোমবার ক্যাবিনেটের মিটিং আছে। সেখানে বিষয়টা ওঠার কথা রয়েছে। যদি না ওঠে তাহলে আগামী ৫ সেপ্টেম্বর সব বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসিদেরকে সাথে নিয়ে যৌথ সভা করে এ বিষয়ে করণীয় নির্ধারণ করা হবে। সেখান থেকে একটি যৌথ বিবৃতিও দেয়া হবে।

তিনি বলেন, এর মধ্যে দাবি আদায় না হলে ভিসিদেরকে সাথে নিয়ে সেপ্টেম্বরের ১০-১২ তারিখের মধ্যে একটি জাতীয় সম্মেলন ডেকে বেতন স্কেল প্রস্তাবনাসহ বৃহৎ কর্মসূচি ঘোষণার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। প্রস্তাবিত বেতন কাঠামোর টাকার অঙ্ক নিয়ে শিক্ষকদের কোনো আপত্তি নেই। কিন্তু এতে শিক্ষকদের সম্মানহানি করা হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষকদের সম্মানের বিষয়ে কোনো ধরণের আপোষ করা হবে না। শিক্ষার্থীদের কথা চিন্তা করে এখন পর্যন্ত নমনীয় কর্মসূচি পালন করা হচ্ছে বলে জানান তিনি।

চার দফা দাবি আদায়ে বেশকিছু দিন ধরে ধারাবাহিক কর্মসূচি পালন করে আসছে পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকেরা। দাবি আদায়ে আল্টিমেটাম শেষ হচ্ছে আগামীকাল ৩১ আগস্ট। এর মধ্যে সিদ্ধান্ত না এলে সেপ্টেম্বর মাসের প্রথম সপ্তাহে শিক্ষকদের জাতীয় সম্মেলন ডেকে অনির্দিষ্টকালের কর্মবিরতিসহ কঠোর কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে বলে হুশিয়ারি উচ্চারণ করেছেন তারা।

চার দফা দাবির মধ্যে রয়েছে, অবিলম্বে স্বতন্ত্র বেতন স্কেল প্রবর্তন এবং এজন্য বেতন কমিশন গঠন, সব বৈষম্য দূরীকরণপূর্বক সিলেকশন গ্রেড অধ্যাপকদের বেতন-ভাতা সিনিয়র সচিবের সমতুল্য করা এবং অধ্যাপক, সহযোগী অধ্যাপক, সহকারী অধ্যাপক ও প্রভাষকদের বেতন কাঠামো ক্রমানুসারে নির্ধারণ করা, রাষ্ট্রীয় ওয়ারেন্ট অব প্রিসিডেন্সে পদমর্যাদাগত অবস্থান নিশ্চিত করা এবং প্রযোজ্য ক্ষেত্রে সরকারি কর্মকর্তাদের অনুরূপ গাড়ি ও অন্যান্য সুবিধা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষকদের ক্ষেত্রেও নিশ্চিত করা।

বুয়েটে কর্মবিরতি পালন

চার দফা দাবিতে বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি ফেডারেশনের চলমান আন্দোলনের ধারাবাহিকতায় বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট) শিক্ষক সমিতি তিন ঘণ্টা কর্মবিরতি এবং অবস্থান ধর্মঘটর কর্মসূচি পালন করেছে। আজ বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে কর্মসূচিতে অর্ধশতাধিক শিক্ষক অংশ নেন।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on pinterest
Share on whatsapp
Share on telegram
Share on pocket

এরকম আরও নিউজ