বাংলাদেশের পাঁচ প্রতিষ্ঠান পেল ‘এমবিলিয়ন্থ অ্যাওয়ার্ড’

mBillionth

মোবাইল খাতের উদ্ভাবন নিয়ে দক্ষিণ এশিয়ার সবচেয়ে বড় অ্যাওয়ার্ড এমবিলিয়ন্থ অ্যাওয়ার্ড পেয়েছে বাংলাদেশের পাঁচ প্রকল্প। টেলিকম ও মোবাইল কনটেন্ট, অ্যাপ্লিকেশন, মডেল উদ্ভাবনকে স্বীকৃতি দিতে এই আন্তর্জাতিক অ্যাওয়ার্ড দেয়া হয়। ২০১০ সাল থেকে চালু হওয়া এমবিলিয়ন্থ অ্যাওয়ার্ডের মাধ্যমে দক্ষিণ এশিয়ার সবচেয়ে প্রতিশ্রুতিশীল মোবাইল উদ্যোগগুলোকে স্বীকৃতি জানানো হয়। বৃহস্পতিবার ভারতের নয়া দিল্লিতে আনুষ্ঠানিকভাবে দেয়া হয় এমবিলিয়ন্থ অ্যাওয়ার্ড।

এমবিলিয়ন্থ অ্যাওয়ার্ড কর্তৃপক্ষ তাদের ওয়েব সাইটে জানিয়েছে, শিক্ষাখাতে অবদান রাখার জন্য শিক্ষক ডটকম, বাণিজ্যে ‘বিকাশ’, নারীদের সেবায় ‘মায়া আপা’, কৃষিখাতে ‘এমপাওয়ার’ এবং বিনোদনে ‘বইপোকা’ নামক বাংলাদেশের সংস্থা পেয়েছে ওই পদক। ওয়েব সাইট ঘুরে জানা গেছে, বিশিষ্ট কম্পিউটার বিজ্ঞানী ড. রাগিব হাসানসহ আরো কয়েকজন শুভানুধ্যায়ী বছর তিনেক আগে চালু করেন অনলাইন স্কুল শিক্ষক ডটকম। উচ্চতর গবেষণা ও জ্ঞান-বিজ্ঞান চর্চার এই বিদ্যানিকেতনটির সমস্ত লেকচার পাওয়া যায় বিনামূল্যে ও বাংলায়। এর শিক্ষকেরা সকলেই নিজ নিজ বিষয়ে পাঠদানে দক্ষ। আর তারা শিক্ষক ডটকম’এ কাজ করছেন পুরোপুরি স্বেচ্ছাশ্রমে।

বেসরকারি ব্র্যাক ব্যাংকের উদ্যোগ বিকাশ লিমিটেড যাত্রা শুরু করে চার বছর আগে। মোবাইল টেলিফোনে টাকা লেনদেনের জনপ্রিয় মাধ্যম ‘বিকাশ’ এখন ছড়িয়ে পড়েছে দেশের সর্বত্র। মোবাইলে যখন তখন সহজে টাকা পাঠানো ও গ্রহণ করা যায় বলে এই প্রকল্পটি অল্পদিনেই হয় বাণিজ্যিকভাবে সফল। অন্যদিকে বাংলাদেশের নারীদের জন্য তথ্য প্রযুক্তি বিষয়ক সেবাদানকারী সংস্থা ‘মায়া আপা’ (মায়া ডটকম ডটবিডি)। এই ওয়েব সাইটটি নারীদের স্বাস্থ্য, মেধা বিকাশ, সামাজিক নিরাপত্তা, সমাধিকার প্রতিষ্ঠাসহ নানা বিষয়ে হালনাগাদ তথ্য সরবরাহ করে। প্রশ্নোত্তর বিভাগে নারীরা যে কোনো বিষয়ে এই সাইট থেকে পেতে পারেন সুপরামর্শ।

এমপাওয়ার-স্যোশাল ডটকম দেশের ছয় জেলায় কৃষিখাতে রেখে চলেছে গুরুত্বপূর্ণ অবদান। গবাদী পশুর দেখাভাল, কৃষি সংবাদ, কৃষি বিষয়ক পরামর্শসহ বিভিন্ন বিষয়ে এই সাইটটি এ পর্যন্ত সরাসরি পরিষেবা দিয়েছে ২ হাজার ৭০০ জনকে। কৃষিখাত ছাড়াও পরিবেশ ও প্রতিবেশ সর্ম্পকে জনসচেতনতা সৃষ্টিতে বিশেষ অবদান রাখছে এই সাইট। আর অনলাইনে বইপত্রের তথ্য-সংবাদ নিয়ে হাজির ‘বইপোকা’ (বাংলাদেশবুকহাউস ডটকম)। নতুন-পুরনো সব ধরনের বইয়ের তথ্যর পাশাপাশি সাইটটি বিনামূল্যে অনলাইনে বই কেনার সাইটগুলো সর্ম্পকেও তথ্য দিচ্ছে। সব বয়সী পাঠকের কথা মনে রেখে সাইটটি সাজানো হয়েছে বিষয়ভিত্তিক। প্রতিটি বইয়ের প্রচ্ছদের পাশাপাশি সেখানে পাওয়া যাবে সংশ্লিষ্ট বইয়ে বিষয়বস্তু, লেখক, প্রকাশক, পৃষ্ঠা সংখ্যা, দাম ও প্রচ্ছদ শিল্পীর নাম। পাঠক পছন্দের বইটি এই সাইট থেকে বেছে নিতে পারবেন সহজেই।

প্রসঙ্গত, ২০১৫ সালের এই অ্যাওয়ার্ড মনোনয়নে মোট আবেদন পড়েছিল ৩২০টি। এর মধ্যে ২৬০টি প্রাথমিক বাছাইয়ে টেকে। এরপর অনলাইন জুরির বাছাইয়ে ১৬০টি প্রকল্প পাঠানো হয় গ্রান্ড জুরির কাছে। গ্রান্ড জুরি এই ১১টি ক্যাটাগরিতে ৫৩টি প্রকল্পকে ফাইনালের জন্য মনোনয়ন দেন। এমবিলিয়ন্থ অ্যাওয়ার্ডে সরকারি প্রতিষ্ঠান, একক ব্যক্তি, ছাত্রছাত্রী, উদ্যোক্তা, বেসরকারি প্রতিষ্ঠান, শিক্ষাবিদ, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও এনজিওগুলো অংশগ্রহণ করে থাকে। এর আগে ২০১৪ সালে এম-বিজনেস অ্যান্ড কমার্স অথবা ব্যাংকিং ক্যাটাগরিতে বাংলাদেশের মোবাইল ক্রেডিট কার্ড স্বস্তি এবং মোবাইল ভিত্তিক কৃষি ক্যাটাগরিতে এম পাওয়ার স্যোশাল এন্টারপ্রাইজ এমবিলিয়ন্থ অ্যাওয়ার্ড পেয়েছিল।

এমবিলিয়ন্থ অ্যাওয়ার্ড-এর আরও বিস্তারিত জানা যাবে http://yourstory.com/2015/07/mbillionth-awards-mobile-apps-south-asia এই ঠিকানায়।
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on pinterest
Share on whatsapp
Share on telegram
Share on pocket

এরকম আরও নিউজ