পুলিশে সাব-ইন্সপেক্টর পদে নিয়োগ

বাংলাদেশ পুলিশবাহিনীর বহিরাগত ক্যাডেট এসআই (নিরস্ত্র)-এর শূন্য পদের বিপরীতে নিয়োগের জন্য উপযুক্ত আগ্রহী প্রার্থীদেরকে শারীরিক মাপ ও শারীরিক পরীক্ষাসহ লিখিত পরীক্ষায় অংশগ্রহণের জন্য বিজ্ঞপ্তি দিয়েছে।

প্রার্থীর যোগ্যতা : বয়স : সাধারণ/ অন্যান্য কোটার প্রার্থীদের ক্ষেত্রে ০১-০১-২০১৮ তারিখে বয়স ১৯ থেকে ২৭ বছর হতে হবে (জন্মতারিখ সর্বনিম্ন ০২-০১-১৯৯৯ থেকে সর্বোচ্চ ০২-০১-১৯৯১ পর্যন্ত ) মুক্তিযোদ্ধা, মুক্তিযোদ্ধা/ শহীদ মুক্তিযোদ্ধার সন্তানদের ক্ষেত্রে ০১-০১-২০১৮ তারিখে ১৯ থেকে ৩২ বছর হতে হবে (জন্মতারিখ সর্বনিম্ন ০২-০১-১৯৯৯ থেকে সর্বোচ্চ ০২-০১-১৯৮৬ পর্যন্ত)। তবে মুক্তিযোদ্ধার সন্তানদের সন্তানের ক্ষেত্রে ০১-০১-২০১৮ তারিখে বয়স ১৯ থেকে ২৭ বছর হতে হবে (জন্মতারিখ সর্বনিম্ন ০২-০১-১৯৯৯ থেকে সর্বোচ্চ ০২-০১-১৯৯১ পর্যন্ত)।

শিক্ষাগত যোগ্যতা : স্নাতক পাস ও কম্পিউটারে অভিজ্ঞতাসম্পন্ন হতে হবে।

শারীরিক যোগ্যতা : পুরুষ প্রার্থী (সব কোটা) : উচ্চতা : কমপক্ষে ৫ ফুট ৪ ইঞ্চি বা ১.৬২৫৬ মিটার ও বুকের মাপ স্বাভাবিক অবস্থায় ৩০ ইঞ্চি বা ০.৭৬২০ মিটার এবং সম্প্রসারিত অবস্থায় ৩২ ইঞ্চি বা ০.৮১২৮ মিটার হতে হবে।
নারী প্রার্থী (সব কোটা) : উচ্চতা : কমপক্ষে ৫ ফুট ২ ইঞ্চি বা ১.৫৭৪৮ মিটার। ওজন : বয়স ও উচ্চতার সাথে ওজন অনুমোদিত পরিমাপের হতে হবে।

জাতীয়তা : প্রার্থীকে জন্মসূত্রে বাংলাদেশের স্থায়ী (পুরুষ/ নারী) নাগরিক হতে হবে।

বৈবাহিক অবস্থা : অবিবাহিত হতে হবে (তালাকপ্রাপ্ত নয়) ও শিক্ষানবিসকাল শেষ না হওয়া পর্যন্ত অবশ্যই প্রার্থীকে অবিবাহিত থাকতে হবে।

শারীরিক মাপ ও শারীরিক পরীক্ষার স্থান, তারিখ ও সময় : বিভিন্ন রেঞ্জ/ বিভাগের জেলা অনুযায়ী প্রার্থীদের শারীরিক মাপ ও শারীরিক পরীক্ষা আগামী ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ তারিখে ঢাকা রেঞ্জের ঢাকা, নারায়ণগঞ্জ, মুন্সীগঞ্জ ও শরীয়তপুর জেলার, ময়মনসিংহ রেঞ্জের ময়মনসিংহ ও শেরপুর জেলার, চট্টগ্রাম রেঞ্জের চট্টগ্রাম, কুমিল্লা ও ফেনী জেলার, রাজশাহী রেঞ্জের রাজশাহী, চাঁপাইনবাবগঞ্জ ও জয়পুরহাট জেলার, রংপুর রেঞ্জের রংপুর, কুড়িগ্রাম ও পঞ্চগড় জেলার, খুলনা রেঞ্জের খুলনা, বাগেরহাট, চুয়াডাঙ্গা ও মেহেরপুর জেলার, বরিশাল রেঞ্জের বরিশাল ও বরগুনা জেলার, সিলেট রেঞ্জের সিলেট ও মৌলভীবাজার জেলার প্রার্থীদের; ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ তারিখে ঢাকা রেঞ্জের কিশোরগঞ্জ, নরসিংদী, গাজীপুর ও গোপালগঞ্জ জেলার, ময়মনসিংহ রেঞ্জের জামালপুর ও নেত্রকোনা জেলার, চট্টগ্রাম রেঞ্জের নোয়াখালী, চাঁদপুর, লক্ষ্মীপুর ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার, রাজশাহী রেঞ্জের বগুড়া, নওগাঁ ও নাটোর জেলার, রংপুর রেঞ্জের লালমনিরহাট, নীলফামারী ও ঠাকুরগাঁও জেলার, খুলনা রেঞ্জের সাতক্ষীরা, যশোর ও নড়াইল জেলার, বরিশাল রেঞ্জের পিরোজপুর ও পটুয়াখালী জেলার, সিলেট রেঞ্জের হবিগঞ্জ ও সুনামগঞ্জ জেলার প্রার্থীদের; ১৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ তারিখে ঢাকা রেঞ্জের টাঙ্গাইল, মানিকগঞ্জ, ফরিদপুর, রাজবাড়ী ও মাদারীপুর জেলার, চট্টগ্রাম রেঞ্জের রাঙ্গামাটি, বান্দরবান, খাগড়াছড়ি ও কক্সবাজার জেলার, রাজশাহী রেঞ্জের পাবনা ও সিরাজগঞ্জ জেলার, রংপুর রেঞ্জের দিনাজপুর ও গাইবান্ধা জেলার, খুলনা রেঞ্জের কুষ্টিয়া, ঝিনাইদহ ও মাগুরা জেলার, বরিশাল রেঞ্জের ঝালকাঠি ও ভোলা জেলার প্রার্থীদের শারীরিক মাপ ও শারীরিক পরীক্ষা সকাল ৯টা থেকে অনুষ্ঠিত হবে। ঢাকা রেঞ্জ/বিভাগের পরীক্ষা এপিবিএন পুলিশ লাইনস্ উত্তরা, ঢাকায়; ময়মনসিংহ রেঞ্জ/বিভাগের পরীক্ষা ময়মনসিংহ জেলা পুলিশ লাইনস, ময়মনসিংহে; চট্টগ্রাম রেঞ্জ/বিভাগের পরীক্ষা সিএমপি পুলিশ লাইনস, চট্টগ্রামে; রাজশাহী রেঞ্জ/ বিভাগের পরীক্ষা রাজশাহী জেলা পুলিশ লাইনস, রাজশাহীতে; রংপুর রেঞ্জ/বিভাগের পরীক্ষা রংপুর জেলা পুলিশ লাইনস, রংপুরে; খুলনা রেঞ্জ/বিভাগের পরীক্ষা আরআরএফ পুলিশ লাইনস, খুলনায়; বরিশাল রেঞ্জ/ বিভাগের পরীক্ষা বরিশাল জেলা পুলিশ লাইনস, বরিশালে এবং সিলেট রেঞ্জ/বিভাগের পরীক্ষা সিলেট জেলা পুলিশ লাইনস, সিলেটে উল্লিখিত তারিখ ও সময়ে অনুষ্ঠিত হবে।

আবেদনপত্র সংগ্রহ করা : শারীরিক মাপ ও শারীরিক পরীক্ষায় উত্তীর্ণ প্রার্থীদের সংশ্লিষ্ট রেঞ্জের ডিআইজির কাছ থেকে ওই পরীক্ষার দিনই তিন টাকা দিয়ে আবেদনপত্রের ফরম ক্রয় করে সংগ্রহ করতে হবে।

আবেদনপত্র জমা দেয়ার তারিখ : প্রাথমিকভাবে শারীরিক পরীক্ষায় উত্তীর্ণ প্রার্থীদের আবেদন ফরম সংগ্রহ করে তা সঠিকভাবে পূরণ করে আগামী ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ তারিখের মধ্যে নিজ নিজ রেঞ্জ ডিআইজির কার্যালয়ে জমা দিতে হবে।

লিখিত পরীক্ষার প্রবেশপত্র : সংশ্লিষ্ট রেঞ্জ ডিআইজিগণ প্রাথমিকভাবে নির্বাচিত প্রার্থীদের লিখিত পরীক্ষায় অংশগ্রহণের জন্য প্রবেশপত্র ইস্যু ও তা যথাসময়ে প্রার্থীদের কাছে প্রেরণ করবেন। লিখিত ও মৌখিক পরীক্ষার সময় প্রার্থীকে অবশ্যই প্রবেশপত্র সাথে আনতে হবে।

লিখিত পরীক্ষার তারিখ, সময় ও নম্বর বণ্টন : ইংরেজি, বাংলা রচনা ও কম্পোজিশন বিষয়ের পরীক্ষা আগামী ১৯ মার্চ ২০১৮ সকাল ১০টা থেকে বেলা ১টা পর্যন্ত অনুষ্ঠিত হবে। এতে ১০০ নম্বর থাকবে। সাধারণ জ্ঞান ও পাটীগণিত বিষয়ের পরীক্ষা আগামী ২০ মার্চ ২০১৮ সকাল ১০টা থেকে বেলা ১টা পর্যন্ত অনুষ্ঠিত হবে। এতে নম্বর থাকবে ১০০। মনস্তত্ত্বের পরীক্ষা আগামী ২১ মার্চ ২০১৮ তারিখে সকাল ১০টা থেকে ১০টা ৩০ মিনিট পর্যন্ত অনুষ্ঠিত হবে। এতে নম্বর থাকবে ২৫। রেঞ্জ ডিআইজিগণ লিখিত পরীক্ষার কেন্দ্রের স্থান নির্ধারণ করবেন এবং প্রার্থীদের তা যথাসময়ে জানাবেন।

মৌখিক পরীক্ষা : মনস্তত্ত্ব ও লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণ প্রার্থীরা কেবল মৌখিক পরীক্ষায় অংশগ্রহণের যোগ্য হিসেবে বিবেচিত হবেন এবং মৌখিক পরীক্ষার স্থান, তারিখ ও সময় যথাসময়ে উত্তীর্ণ প্রার্থীদের জানানো হবে।

স্বাস্থ্য পরীক্ষা এবং ভিআর ফরম পূরণ : প্রাথমিকভাবে নির্বাচিত প্রার্থীদের স্বাস্থ্য পরীক্ষা ও ভিআর ফরম পূরণ করতে হবে। এ সংক্রান্ত সংশ্লিষ্ট রেঞ্জ ডিআইজিগণ কর্তৃক তারিখ, সময় ও স্থান যথাসময়ে প্রার্থীদের জানানো হবে।

চূড়ান্ত প্রার্থী নির্বাচন : নির্বাচন বোর্ড কর্তৃক সুপারিশকৃত প্রাথমিকভাবে নির্বাচিত প্রার্থীদের স্বাস্থ্য পরীক্ষায় যোগ্য ও ভিআর সফলভাবে শেষের পর মৌলিক প্রশিক্ষণ গ্রহণের জন্য চূড়ান্তভাবে মনোনীত করা হবে। তবে পুলিশ ভেরিফিকেশন ফরমে কোনো তথ্য গোপন বা মিথ্যা তথ্য দিলে কোনো প্রার্থীকে প্রশিক্ষণের জন্য চূড়ান্তভাবে মনোনীত করা হবে না।

প্রশিক্ষণ : বহিরাগত ক্যাডেট হিসেবে নির্বাচিত প্রার্থীদের বাংলাদেশ পুলিশ অ্যাকাডেমি, সারদা, রাজশাহীতে এক বছরমেয়াদি মৌলিক প্রশিক্ষণে অংশগ্রহণ করতে হবে। প্রশিক্ষণকালে বিনামূল্যে আহার, বাসস্থান, ইউনিফর্ম, চিকিৎসাসেবা দেয়া হবে এবং ১০০০ টাকা হারে মাসিক ভাতা দেয়া হবে।

নিয়োগ ও চাকরির সুবিধাদি : সাফল্যজনকভাবে মৌলিক প্রশিক্ষণ শেষে ২০১৫ সালের জাতীয় বেতন স্কেলের ১০ম গ্রেড ১৬০০০-৩৮৬৪০/- টাকার স্কেলে বেতনসহ প্রাপ্ত অন্যান্য সুবিধা (যেমনÑ স্বল্পমূল্যে রেশন, বিনামূল্যে পোশাক, চিকিৎসা সুবিধা) প্রদানের শর্তে শিক্ষানবিস সাব-ইন্সপেক্টর অব পুলিশ (নিরস্ত্র) পদে নিয়োগ দেয়া হবে। এ ছাড়া বিনামূল্যে পোশাক, ঝুঁকিভাতা, চিকিৎসা সুবিধা ও নিজ ও পরিবারের নির্ধারিতসংখ্যক সদস্যদের জন্য প্রাপ্যতা অনুযায়ী পারিবারিক রেশনসামগ্রী স্বল্পমূল্যে দেয়া হবে। এ ছাড়া প্রচলিত নিয়মানুযায়ী উচ্চতর পদে পদোন্নতিসহ জাতিসঙ্ঘ শান্তিরক্ষা মিশনে যাওয়ার সুযোগ রয়েছে।

আবেদনপত্রের সাথে যেসব কাগজপত্র আনতে হবে : প্রথম শ্রেণীর গেজেটেড কর্মকর্তা কর্তৃক সত্যায়িত সদ্য তোলা ৩ কপি পাসপোর্ট সাইজের রঙিন ছবি, শিক্ষাগত যোগ্যতার সব সনদপত্রের/সাময়িক সনদপত্রের মূলকপি, সর্বশেষ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের প্রধান কর্তৃক প্রদত্ত চারিত্রিক সনদপত্রের মূলকপি, জেলার স্থায়ী বাসিন্দা/জাতীয়তার প্রমাণস্বরূপ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান/সিটি কর্পোরেশন বা পৌরসভার মেয়র/ওয়ার্ড কাউন্সিলর (যা প্রযোজ্য)-এর কাছ থেকে স্থায়ী নাগরিকত্বের সনদপত্রের মূলকপি। প্রার্থীর জাতীয় পরিচয়পত্রের মূলকপি, তবে যদি তা না থাকে সেক্ষেত্রে প্রার্থীর পিতা/মাতার জাতীয় পরিচয়পত্রের মূলকপি, এমএস অফিস, ইন্টারনেট ও ট্রাবল স্যুটিংয়ের ওপর ৩ সপ্তাহ মেয়াদের কম্পিউটার প্রশিক্ষণ সনদপত্রের মূলকপি, মুক্তিযোদ্ধা/শহীদ মুক্তিযোদ্ধার সন্তান/সন্তানের সন্তানদের ক্ষেত্রে প্রার্থীর পিতা/মাতা/ পিতামহ/ মাতামহের নামে ইস্যুকৃত মুক্তিযোদ্ধা সনদপত্রের মূলকপি, যা যথাযথভাবে উপযুক্ত কর্তৃপক্ষ কর্তৃক স্বাক্ষরিত ও প্রতিস্বাক্ষরিত থাকতে হবে। এ ছাড়া প্রার্থীর পিতা/মাতা/ পিতামহ/ মাতামহের নামে ইস্যুকৃত মুক্তিযোদ্ধা সনদের সাথে মুক্তিযোদ্ধার জাতীয় পরিচয়পত্র/জন্মতারিখ, মুক্তিবার্তা নম্বর, গেজেটের মূলকপি উপস্থাপন করতে হবে। মুক্তিযোদ্ধা/শহীদ মুক্তিযোদ্ধার পুত্র-কন্যা হলে প্রার্থী যে মুক্তিযোদ্ধা/শহীদ মুক্তিযোদ্ধার পুত্র-কন্যার পুত্র-কন্যা এ মর্মে সংশ্লিষ্ট ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান/সিটি কর্পোরেশন বা পৌরসভার মেয়র/ওয়ার্ড কাউন্সিলর (যা প্রযোজ্য) কর্তৃক প্রদত্ত প্রত্যয়নপত্রের মূলকপি। এ ছাড়া মুক্তিযোদ্ধা/শহীদ মুক্তিযোদ্ধার সন্তানের সন্তানদের ক্ষেত্রে প্রথম শ্রেণীর ম্যাজিস্ট্রেটের কাছে সম্পাদিত এফিডেভিট অথবা বিজ্ঞ আদালত কর্তৃক প্রদত্ত সাকসেশন সার্টিফিকেট উপস্থাপন করতে হবে।

উপজাতীয় কোটার প্রার্থীদের ক্ষেত্রে জেলা প্রশাসক/উপজেলা নির্বাহী অফিসার কর্তৃক প্রদত্ত সনদপত্রের মূলকপি। আবেদনপত্রের সাথে সংশ্লিষ্ট রেঞ্জের ডেপুটি ইন্সপেক্টর জেনারেল, বাংলাদেশ পুলিশের অনুকূলে যেকোনো সরকারি ব্যাংক থেকে পরীক্ষার ফি বাবদ ১-২২১১-০০০০-২০৩১ নম্বর কোডে ৩০০ টাকা জমা দিয়ে ট্রেজারি চালানের মূলকপি আবেদনপত্রের সাথে সংযোজন করতে হবে।

Leave a Reply