আসন বাড়লো রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে (রাবি) ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষে অনার্স (সম্মান) ভর্তিতে নতুন ৭টি বিভাগ এবং দুটি ইনস্টিটিউটে শিক্ষার্থী ভর্তি করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কর্তৃপক্ষ। এবার ৫৭টি বিভাগে ৯টি অনুষদে মোট ভর্তি করানো হবে চার হাজার ৭৩ জন শিক্ষার্থীকে। সোমবার দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনেট ভবনে উপাচার্যের সভাপতিত্বে ভর্তি পরীক্ষা কমিটির সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

রাবি

বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক শাখা সূত্রে জানা গেছে, ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষে বিভিন্ন অনুষদে মোট সাতটি বিভাগ অনুমোদ দেওয়া হয়েছে। এসব বিভাগে এবছর শিক্ষার্থী ভর্তি করানো হবে। আইন অনুষদের অধীনে ‘আইন ও ভূমি প্রশাসন’ বিভাগে ৫০ জন, প্রকৌশল অনুষদের অধীনে ‘ইলেকট্রিক্যাল এন্ড ইলেকট্রনিক্স ইঞ্জিনিয়ারিং’ বিভাগে ৩০ জন, জীব ও ভূ-বিজ্ঞান অনুষদের অধীনে ‘ক্লিনিক্যাল সাইকোলজি’ বিভাগে ২৫ জন এবং বিজ্ঞান অনুষদের অধীনে ‘শারীরিক শিক্ষা ও ক্রীড়া বিজ্ঞান’ বিভাগে ৩০ জন শিক্ষার্থী নতুন করে ভর্তি করানো হবে। এবার বিশ্ববিদ্যালয়ে কলা অনুষদ থেকে পৃথক করে চারুকলাকে স্বতন্ত্র একটি অনুষদ ঘোষণা করা হয়েছে। এই অনুষদের অধীনে নতুন তিনটি বিভাগে এ শিক্ষাবর্ষে শিক্ষার্থী ভর্তি করা হবে। ওই অনুষদের অধীনে ‘গ্রাফিক ডিজাইন, কারু শিল্প ও শিল্পকলার ইতিহাস’ বিভাগে ৪৫ জন, ‘চিত্রকলা, প্রাচ্যকলা ও সাপচিত্র’ বিভাগে ৪৫ এবং ‘মৃৎশিল্প ও ভাস্কর্র্য’ বিভাগে ৩০ জন শিক্ষার্থী নতুন করে ভর্তি করা হবে। এছাড়াও বিশ্ববিদ্যালয়ের দুটি ইনস্টিটিউট এবারই প্রথম অনার্সে শিক্ষার্থী ভর্তির সিদ্ধান্ত নিয়েছে। ব্যবসায় প্রশাসন ইনস্টিটিউটে বিবিএ-তে ৫০ জন এবং শিক্ষা ও গবেষণা ইনস্টিটিউটে বিএড অনার্সে ৫০ জন শিক্ষার্থী ভর্তি করানো হবে।

এদিকে, গত বছর ২০১৪-১৫ শিক্ষাবর্ষে আটটি অনুষদের অধীনে ৫০টি বিভাগে মোট আসন সংখ্যা ছিল তিন হাজার ৮২৮টি। গত বছর বিশ্ববিদ্যালয়ের সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের অধীনে সমাজকর্ম বিভাগে ১১০ জন শিক্ষার্থী ভর্তি করা হলেও এবার তা কমিয়ে ১০০ করা হয়েছে। এ বছর নয়টি অনুষদে এবং দুটি ইনস্টিটিউটে মোট চার হাজার ৭৩ জন শিক্ষার্থী ভর্তি করা হবে।

ভর্তির ফরম বিতরণ ও ভর্তি পরীক্ষা:
রাবিতে ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষে ভর্তি পরীক্ষার আবদেন ফরম বিতরণ শুরু হবে আগামী ১ অক্টোবর। ফরম বিতরণ শেষ হবে ১৮ অক্টোবর। এবার বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার সেন্টারের সহায়তায় ভর্তি পরীক্ষার ফরম বিরতণ করা হবে। গত বছরের মতো এবার মুঠোফোন টেলিটকের সাহায্য নেওয়া হবে না। ৫৭টি বিভাগে মোট নয়টি ইউনিটে ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে আগামী ৯ থেকে ১২ নভেম্বর।

শিক্ষার্থীদের ভর্তি পরীক্ষার যোগ্যতা:
২০১৪-১৫ শিক্ষাবর্ষের সাথে সামঞ্জস্য রেখে ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষে শিক্ষার্থীদের আবেদন ফরমের যোগ্যতার ক্ষেত্রে মানবিক শাখা থেকে উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীদের এসএসসি ও এইচএসটি বা সমমান উভয় পরীক্ষায় (চতুর্থ বিষয়সহ) ন্যূনতম জিপিএ-৩.৫ সহ মোট জিপিএ-৭.৫ করা হয়। বিজ্ঞান শাখা থেকে উত্তীর্ণদের ক্ষেত্রেও একই যোগ্যতা অর্থাৎ (চতুর্থবিষয়সহ) ন্যূনতম জিপিএ-৪.০০ সহ মোট জিপিএ-৮.৫ রাখা হয়। এছাড়াও বাণিজ্য শাখা থেকে উত্তীর্ণদের জন্যও (চতুর্থ বিষয়সহ) ন্যূনতম জিপিএ ৩.৫ সহ মোট জিপিএ-৮.০০ রাখা হয়। অন্যসকল ক্ষেত্রে যোগ্যতা একই রাখা হয়। নতুন দুটি ইনস্টিটিউনের অনার্স ভর্তিতে নির্ধারিত ইউনিটের যোগ্যতা থাকলেও হবে। ইনস্টিটিউনে পরীক্ষা দেওয়া জন্য বাড়তি যোগ্যতা লাগবেনা।

বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের পরিচালক মো. আনসার উদ্দীন বলেন, ইনস্টিটিউটে এবারই প্রথম শিক্ষার্থী ভর্তি করানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। ইনস্টিটিউটের নিজস্ব নিয়মে ভর্তি করানোর জন্য বলা হলেও ভর্তি পরীক্ষা কমিটি তা অনুমোদন দেয়নি। তাই সামাজিক বিজ্ঞান অনষদের অধীনে ‘ই’ ইউনিটের মাধ্যমে ৫০ জন শিক্ষার্থী ভর্তি করানো হবে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক শাখার উপ-রেজিস্ট্রার এ এইচ এম আসলাম হোসেন বলেন, চারুকলাকে নতুন অনুষদ ঘোষণা করায় এবারের ভর্তি পরীক্ষায় নতুন একটি ইউনিট বৃদ্ধি করা হয়েছে। বৃদ্ধি পাওয়া ‘আই’ ইউনিটে এবার শিক্ষার্থী ভর্তি করানো হবে। ব্যবসায় প্রশাসন ইনস্টিটিউটের বিবিএ ভর্তি পরীক্ষা ‘ডি’ ইউনিটের অধীনে এবং শিক্ষা ও গবেষণা ইনস্টিটিউটে বিএড অনার্স ভর্তি পরীক্ষা ‘ই’ ইউনিটের অধীনে নেওয়া হবে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক মুহম্মদ মিজানউদ্দিন বলেন, আগামী বছর জানুয়ারির প্রথম থেকে ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থীদের ক্লাস-পরীক্ষা শুরু করা হবে। নতুন বিভাগুলোতে জানুয়ারির আগেই শিক্ষক নিয়োগ ও শ্রেণী কক্ষ বরাদ্দ দেওয়া হবে।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on pinterest
Share on whatsapp
Share on telegram
Share on pocket

এরকম আরও নিউজ